গন্তব্য অজানা

গ্রন্থটি কলেবরে বেশী বড় নয়। প্রায় নব্বই পৃষ্ঠার মধ্যেই মোট চব্বিশটি লেখার সন্নিবেশন হয়েছে। গড়ে প্রতিটি লেখার জন্য বরাদ্দ হয়েছে অনধিক চার পৃষ্ঠা। গ্রন্থের নামকরণ করা হয়েছে প্রায় শেষের দিকের একটি লেখার নামে। লেখাগুলি ছোট ছোট তথ্য-কণিকার মত। হঠাৎ আলোর ঝলকানিও রয়েছে কতকগুলি লেখায়। লেখাগুলিকে ঠিক পূর্ণ প্রবন্ধ বলা যাবে না। আবার নিছক ‘নিউজ’ বা ‘খবর’-ও বলা ঠিক হবে না। সম্ভবত : ‘নিউজ এবং ভিউজ’, খবর এবং খবরের উপর মতভাষ্য দুই-এর সংমিশ্রণে লেখাগুলি তৈরী হয়েছে। লেখাগুলির জন্য সেই সব বিষয়ই নির্বাচন করা হয়েছে যার ব্যাপারে সংবাদপত্রের পাঠকের তাৎক্ষণিক আগ্রহ ও কৌতূহল রয়েছে। প্রতিটি বিষয়েরই সম-সাময়িকতা রয়েছে। তবে লেখাগুলিকে কালানুক্রমিকভাবে না সাজিয়ে লেখক বিষয়বস্তু ভিত্তিক যুক্তিক্রম অনুসরণ করে সাজিয়েছেন।

৳ 130

About The Author

জসীম চৌধুরী সবুজ

জসীম চৌধুরী সবুজ

স্বাধীনতা উত্তর পর্বে যে-প্রজন্মটি বাংলাদেশ গড়ার সপ্ন দেখেছিলো, সেই প্রজন্মের এক কর্মনিষ্ঠ তরুণ। তারুন্যের উচ্ছল সময়ে এদেশে মেহনতি মানুশের মুক্তির আন্দোলনে তিনি ছিলেন অগ্রসারির এক সৈনিক। মধ্য সত্তুর দশক থেকেই তিনি এদেশের মানুষেরর অধিকার আদায়ের সংগ্রামে ছিলেন এক তরুণ তুর্কি।
সমাজতন্ত্র ও সাম্যবাদের আদর্শে প্রানিত হয়ে তিনি অর্থ কিংবা প্রতিষ্ঠার পথে না গিয়ে সমাজ বদলে বন্ধুর পথের পদাতিক হয়েছেন, হয়েছেন কীর্তিমান সাংবাদিক; হয়েছেন যশস্বী লেখক। কী রাজনীতি, কী সাংবাদিকতা বা মননশী লেখালেখি সবকিছুতেই তিনি সততা ও দায়বোধের সাথে এদেশের অসহায় মানুষের কল্যানের সাথে লড়ছেন। ফলে জসীম চৌধুরী সবুজের কলাম ও গদ্য রচনাগুলো হয়ে উঠেছে তুমুল্ভাবে মানবিক। তিনি সমাজের নানা খুঁটিনাটি বিষয় অনুসন্ধিৎসু চোখে শুধু নির্ণয় করেননি তাঁর রচনার সেসব অসঙ্গতির সমাধানের দিক নির্দেশনা প্রদান করেছেন।

জসীম চৌধুরী সবুজ একাধারে সাংবাদিক, কলামিস্ট, লেখক ও প্রাবন্ধিক। সাহসী ও সৎ সাংবাদিকতার একটি উজ্জ্বল নাম জসীম চৌধুরী সবুজের রয়েছে স্বতন্ত্র, স্বচ্ছ ও উজ্জ্বল ভূবন, যে ভুবনে তিনি নিঃশব্দ। সাংবাদিকতা ও লেখালেখি জীবনে প্রতিষ্ঠা করেছেন তার আধুনিক মন ও বিশ্বাসকে। প্রবন্ধ ও কলাম জাতীয় রচনায় তাঁকে আমরা পাই দ্বিধাহীন সাহসী উচ্চারনের অগ্রসৈনিক হিসেবে। সমাজ, রাজনীতি অর্থনীতি সহ নানা বিষয়েই তিনি কল্ম ধরেছেন। তার লিখন শৈলী ইত্যকার বীক্ষিত সব বিষয়াদি নির্মেদভাবে বিনির্মিত হওয়ার পাশাপাশি প্রবল আবেগ ও মানবিকতায় সিক্ত হয়ে ওঠে। ভ্রমন কাহিনী হিসেবে এটি লেখকের প্রয়াস হলেও প্রকাশীত গ্রন্থের তালিকায় পঞ্চম। প্রাঞ্জল ও প্রচল ভাষায় লেখা তার ভ্রমন কাহিনী পাঠককে তাইওয়ান এবং জাপান সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে সাহায্য করবে।

বলাকা প্রকাশনঃ

লেখক ও সাংবাদিক জসীম চৌধুরী সবুজের এটি দ্বিতীয় প্রকাশনা। গ্রন্থটির নাম ‘গন্তব্য অজানা’। লেখক তার এই গ্রন্থটি উৎসর্গ করেছেন ‘কমরেড মণি সিংহ- শতাব্দির কিংবদন্তীকে’। এ থেকেই আমরা অনুমান করতে পারি লেখকের লেখার মূল ঝোঁকটা কোন দিকে হতে পারে।

গ্রন্থটি কলেবরে বেশী বড় নয়। প্রায় নব্বই পৃষ্ঠার মধ্যেই মোট চব্বিশটি লেখার সন্নিবেশন হয়েছে। গড়ে প্রতিটি লেখার জন্য বরাদ্দ হয়েছে অনধিক চার পৃষ্ঠা। গ্রন্থের নামকরণ করা হয়েছে প্রায় শেষের দিকের একটি লেখার নামে। লেখাগুলি ছোট ছোট তথ্য-কণিকার মত। হঠাৎ আলোর ঝলকানিও রয়েছে কতকগুলি লেখায়। লেখাগুলিকে ঠিক পূর্ণ প্রবন্ধ বলা যাবে না। আবার নিছক ‘নিউজ’ বা ‘খবর’-ও বলা ঠিক হবে না। সম্ভবত : ‘নিউজ এবং ভিউজ’, খবর এবং খবরের উপর মতভাষ্য দুই-এর সংমিশ্রণে লেখাগুলি তৈরী হয়েছে। লেখাগুলির জন্য সেই সব বিষয়ই নির্বাচন করা হয়েছে যার ব্যাপারে সংবাদপত্রের পাঠকের তাৎক্ষণিক আগ্রহ ও কৌতূহল রয়েছে। প্রতিটি বিষয়েরই সম-সাময়িকতা রয়েছে। তবে লেখাগুলিকে কালানুক্রমিকভাবে না সাজিয়ে লেখক বিষয়বস্তু ভিত্তিক যুক্তিক্রম অনুসরণ করে সাজিয়েছেন। তবে সব সময় একই যুক্তিক্রম অনুসৃত হয় নি। যেমন প্রথম লেখাটি নৈতিক শিক্ষার উপর, দ্বিতীয় লেখাটি আবার বিশ্বব্যাংক Ñ আই.এম.এফের কর্তৃত্বের উপর, আর ঠিক এর পরেই আবার রয়েছে জ্বালানী সাশ্রয়ের কথা। তবে একটু এলো-মেলো ভাবে সংকলিত হলেও, সবগুলি লেখারই মূল সুরটি হচ্ছে অন্যায়, শোষণ, অত্যাচারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ-বিক্ষোভ-প্রতিবাদমূলক। বোঝা যায় লেখক আন্তরিকভাবে চাইছেন অবস্থা বদলে যাক্ !

লেখক ব্যক্তিগতভাবে দৈনিক যুগান্তর এর বিশেষ প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত। তার পেশাগত তাগিদেই তাঁকে এই লেখাগুলি সম্ভবত লিখতে হয়েছিল। ফলে অধিকাংশ লেখাই আগে কোন না কোন তারিখে যুগান্তরের পাতায় প্রকাশিত হয়েছে। কিছু লেখা অবশ্য অন্য পত্রপত্রিকাতেও পূর্বে প্রকাশিত হয়েছিল। সেদিক থেকে এই লেখাগুলি আনকোরা নতুন লেখা নয়। তবে লেখাগুলি ছড়িয়ে ছিটিয়ে হারিয়ে যেত যদি না লেখক এ ধরনের গ্রন্থের মধ্যে এগুলিকে বন্দি না করতেন। সৃষ্টির প্রতি লেখকের এই মমতা প্রশংসনীয়। আমি আশা করি পাঠকরাও সমুচিত মমতাসহ এই লেখাগুলি পাঠ করবেন।

এম.এম. আকাশ
অধ্যাপক, অর্থনীতি বিভাগ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “গন্তব্য অজানা”

Your email address will not be published. Required fields are marked *