আনোয়ারা একাত্তরের গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধ/ANAWAR : EKATTORER GONOHOTTYA O MUKTIJUDDHO

“আনোয়ারা : একাত্তরের গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধ” গ্রন্থের লেখক জামাল উদ্দিন ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দে ছিলেন “টিনএ্যাজ’। ছিলেন আনোয়ারা হাইস্কুলে অধ্যয়নরত একজন কিশোর , অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। কিশোর জামাল উদ্দিনকে ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দ দারুণভাবে প্রভাবিত করেছিল। ৭১-এর ন’মাস জুড়ে নিজ গ্রাম শিলাইগড়ার নিকটবর্তী আনোয়ারা সদর ও অন্যান্য গ্রামে সংঘটিত নৃশংস ঘটনাসমূহ তাঁর কিশোর মনে গভীর রেখাপাত করে।
যার ফলে কিশোর জামাল উদ্দিনের মনে, চিন্তা-চেতনায়, সেই নৃশংস ঘটনাসমূহের সৃষ্টিকর্তা-পাকিস্তান, রাজাকার, আল-বদর, আল-শামস, শান্তি কমিটি, মুসলিম লীগ, জামাতে ইসলামী, ইসলামী ছাত্রসংঘ-ইত্যাদি নরঘাতক, হায়েনা ও খুনিদের ব্যাপারে জন্ম নেয় বিরাট এক নেতিবাচক মানসিকতা। যার ধারাবাহিকতায় সৃষ্টি হয়েছে এই কালজয়ী ইতিহাস গ্রন্থ-আনোয়ারাঃ একাত্তরের গণতহ্যা ও মুক্তিযুদ্ধ। ২০০৬ সালে জামাল উদ্দিন আমাকে তাঁর রচিত একটি মূল্যবান ইতিহাস গ্রন্থ উপহার দিয়েছিলেন। “দেয়াঙ পরগণার ইতিহাস” নামক এই মূল্যবান গ্রন্থটির দু’টি খণ্ড, একটি আদিকাল অপরটি আধুনিককাল। দেয়াঙ পরগণার ইতিহাস-এর আধুনিকাল পর্বেও জামাল উদ্দিন আনোয়ারার মুক্তিযুদ্ধ বিষয়টি বিস্তারিতভাবে উঠে এসেছে। জামাল উদ্দিনকে অসংখ্য ধন্যবাদ। সময়ের সবচেয়ে সাহসী ভূমিকাটি তিনি পালন করেছেন। নিঃসন্দেহে এটি একটি দুরূহ ও শ্রমসাধ্য কাজ। একাজ করতে গিয়ে জামাল উদ্দিনকে যে কী ধরনের প্রতিকূল অবস্থার সম্মুখীন হতে হয়েছে, তা তাঁর লেখাতেই স্পষ্ট হয়েছে।………………………………

বিনীত
সিরু বাঙালি
গেরিলা কমাণ্ডার, লেখক, গবেষক

৳ 300

About The Author

জামাল উদ্দিন

জামাল উদ্দিন

ইতিহাসের কিছু হীরক্ষন্ডকে উপহার দিয়েছেন। দুই পর্বে তাঁর প্রনীত দেয়াং পরগনার ইতিহাস থেকে আমরা জানতে পারি আমাদের অতিহ্যের সম্পর্কসূত্র বহু সুদূরের। তিনি দ্বিতীয় খ্রীস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত দেয়াঙয়ে প্রাচীন বৌদ্ধ সভ্যতার নিদর্শন পন্ডিতবিহার বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান প্রথম সনাক্ত করেন।
জামাল উদ্দিন পেশায় সাংবাদিক। জন্ম ৮মে ১৯৫৯। চট্টগ্রাম জেলা আনোয়ারা থানার শিলাইগড়া গ্রামে। ৬৯-৭০ সালে কৈশোর জীবন থেকে ঘনিষ্ঠভাবে প্রগতিশীল রাজনীতির প্রতি তাঁর আকর্ষন। জামাল উদ্দিন ৭৫’-এ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের নৃশংস হত্যাকাণ্ড পরবর্তি রাজনৈতিক অঙ্গনে সক্রিয় ভুমিকা পালন করেন। সেই কৈশোরকাল থেকে একই সাথে তিনি বিভিন্ন সংবাদপত্র অ সাময়িকীতে গবেষনামূলক লেখালেখি শুরু করেন। কলেজ জীবন শেষ করে তিনি সাংবাদিকতাকে বেঁচে নিয়েছেন ১৯৮০ সাল থেকে । জাতীয় দৈনিক বাংলা বানী। চট্টগ্রামের স্থানীয় দৈনিক সেবক-এর স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কর্মজীবনের শুরু। পরবর্তীতে জাতীয় দৈনিক ইনকিলাব, দৈনিক রুপালী , দৈনিক খবর ও দৈনিক আজকের কাগজ পত্রিকায় সটাফ রিপোর্টার ও ব্যুরো প্রধান হিসেবে গুরুত্বপুর্ণ পদে ২০০২ সাল পর্যন্ত সাংবাদিকতা জীবন অতিবাহিত করেছেন।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “আনোয়ারা একাত্তরের গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধ/ANAWAR : EKATTORER GONOHOTTYA O MUKTIJUDDHO”

Your email address will not be published. Required fields are marked *